ঘন ঘন গ্যাস-অম্বল? ভাবছেন বদহজম? অবহেলা করে বিপদ ডেকে আনছেন

ঘন ঘন গ্যাস-অম্বল? কিছু খেলেই পেট ভার, বুক জ্বালা? ভাবছেন বদহজম? গিলছেন অ্যান্টাসিড? অবহেলা করে বিপদ ডেকে আনছেন আপনি। ক্রনিক গ্যাস-অম্বল থেকে হতে পারে পাকস্থলীর ক্যানসার। এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

ফাস্ট লাইফ। লাইফস্টাইলে আমূল বদল। খাওয়া কম, ঘুম কম। কাজ বেশি। ইয়ং জেনারেশনের সিংহভাগই বাড়িতে খাওয়া-দাওয়া ছেড়ে দিয়েছে। ফাস্ট ফুড জায়েন্টদের রমরমায় তাদের পছন্দ এখন শুধুমাত্র ফ্রায়েড খাবার। খাবার সময়েরও কোনও ঠিক নেই।

সকাল ৯টায় ব্রেকফাস্ট করে তারা দুপুরের খাবার খায় বিকেল ৪টেয়। আর রাতের খাবার তো ঘড়ির কাঁটাকে তোয়াক্কাই করে না। কখনও রাত ১২টা তো কখনও ১টা। এমনই অস্বাস্থ্যকর ডায়েট ও লাইফস্টাইলের কারণে গ্যাস-অম্বল এখন আমাদের নিত্যসঙ্গী। অ্যাসিডিটির মূল কারণ খালি পেট। দিনের বেশিরভাগ সময় পেট খালি থাকলে পাকস্থলীতে উপস্থিত অ্যাসিডগুলি খারাপ প্রভাব ফেলে। যার ফলে অ্যাসিড রিফ্লাক্স, বদহজম সহ হজমের নানা সমস্যা। ঘরে ঘরে গ্যাস, পেটের অসুখ। জল খেলেও গলা-বুক-পেট জ্বালা, চোঁয়া ঢেকুর, পেট ভুটভাট।

ঘন ঘন গ্যাস-অম্বল? কিছু খেলেই পেট ভার, বুক জ্বালা? ভাবছেন বদহজম? গিলছেন অ্যান্টাসিড? অবহেলা করে বিপদ ডেকে আনছেন আপনি। ক্রনিক গ্যাস-অম্বল থেকে হতে পারে পাকস্থলীর ক্যানসার। এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

ফাস্ট লাইফ। লাইফস্টাইলে আমূল বদল। খাওয়া কম, ঘুম কম। কাজ বেশি। ইয়ং জেনারেশনের সিংহভাগই বাড়িতে খাওয়া-দাওয়া ছেড়ে দিয়েছে। ফাস্ট ফুড জায়েন্টদের রমরমায় তাদের পছন্দ এখন শুধুমাত্র ফ্রায়েড খাবার। খাবার সময়েরও কোনও ঠিক নেই।

সকাল ৯টায় ব্রেকফাস্ট করে তারা দুপুরের খাবার খায় বিকেল ৪টেয়। আর রাতের খাবার তো ঘড়ির কাঁটাকে তোয়াক্কাই করে না। কখনও রাত ১২টা তো কখনও ১টা। এমনই অস্বাস্থ্যকর ডায়েট ও লাইফস্টাইলের কারণে গ্যাস-অম্বল এখন আমাদের নিত্যসঙ্গী। অ্যাসিডিটির মূল কারণ খালি পেট। দিনের বেশিরভাগ সময় পেট খালি থাকলে পাকস্থলীতে উপস্থিত অ্যাসিডগুলি খারাপ প্রভাব ফেলে। যার ফলে অ্যাসিড রিফ্লাক্স, বদহজম সহ হজমের নানা সমস্যা। ঘরে ঘরে গ্যাস, পেটের অসুখ। জল খেলেও গলা-বুক-পেট জ্বালা, চোঁয়া ঢেকুর, পেট ভুটভাট।

গ্যাস-অম্বলকে তাই অবহেলা করা যাবে না মোটেই। চিকিত্সকের পরামর্শ না নিয়ে দিনের পর দিন গ্যাসের ওষুধ বা অ্যান্টাসিড খেতে থাকলে মারাত্মক বিপদ।

প্রতিরোধের উপায় কী?

চিকিত্সকদের পরামর্শ, বেশি তৈলাক্ত খাবার, ভাজাভুজি, বাসি-পচা খাবার, খুব বেশি খাবার, অত্যধিক চা-কফি, ধূমপান, জর্দা-তামাক, সুপারি খাওয়া ছাড়তেই হবে। ঠিক সময়ে খাওয়া, পর্যাপ্ত ঘুম মাস্ট। বদল আনতেই হবে লাইফস্টাইলে।

Releated Post