ছাত্র হত্যার পর অশান্ত এলাহাবাদ, বাসে আগুন দিল বিক্ষোভকারীরা

এলাহাবাদ: উত্তর প্রদেশের এলাহাবাদে দিলীপ নামে এক আইনের ছাত্রের হত্যার প্রতিবাদে তুমুল বিক্ষোভ চলছে। গতকাল এ নিয়ে শহরে প্রচণ্ড অশান্তি হয়, একটি বাসে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা।

খুনের মূল অভিযুক্তকে এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। অভিযুক্তর আত্মীয় বিজেপির প্রাক্তন বিধায়ক সোনু সিংহকেও জেরা করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

এলএলবি পড়ুয়া ২৬ বছরের দিলীপকে সকলের সামনে গণধোলাই দিয়ে মারা হয় বলে অভিযোগ। ৩ জন গ্রেফতার হলেও মূল অভিযুক্ত বিজয়শঙ্কর সিংহ এখনও ফেরার। শোনা গিয়েছে, নিজের আত্মীয় ও বিজেপির প্রাক্তন বিধায়ক সোনু সিংহের এলাকা সুলতানপুরে গিয়ে সে গা ঢাকা দিয়েছে।

যোগী আদিত্যনাথ সরকার দিলীপের পরিবারকে ২০ লাখ টাকা আর্থিক সাহায্য দেবে বলে জানিয়েছে। কিন্তু তাতে শান্ত হয়নি বিক্ষোভকারীরা। বাস জ্বালিয়ে, রাস্তা আটকে চলছে আন্দোলন। এই পরিস্থিতিতে এলাহাবাদের নিরাপত্তা আরও বাড়ানো হয়েছে।

৯ তারিখ রাতে এলাহাবাদ ডিগ্রি কলেজের ছাত্র দিলীর ৩ সঙ্গীকে নিয়ে কর্নেলগঞ্জ এলাকার কালিকা হোটেলে খেতে যান। কিন্তু সামান্য কথা কাটাকাটির জেরে তাঁকে গণধোলাই দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। লোহার রড আর ইট দিয়ে তাঁকে নির্মমভাবে মারধর করা হয়, ফলে মৃত্যু হয় তাঁর। প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ, ঠিক সময়ে পুলিশ এসে পড়লে দিলীপকে নিশ্চিতভাবে বাঁচানো যেত। তাদের গাফিলতিতেই তাঁর মৃত্যু ঘটেছে। গাফিলতির জেরে এলাকার ইন চার্জ ও ২ কনস্টেবলকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। এসএইচও-র বিরুদ্ধে দেওয়া হয়েছে তদন্তের নির্দেশ।

মুন্না সিংহ, জ্ঞান প্রকাশ অবস্থি ও অভিযুক্তদের গাড়ির চালক রামদীন মৌর্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বিজয় শঙ্করের তল্লাশি চালাচ্ছে তারা। অভিযুক্তদের একটি ফর্চুনার গাড়িও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

Releated Post