এই প্রথম, ‘ডায়েরিয়ায়’ এক ব্যক্তির মৃত্যু, আরও এলাকায় ছড়াচ্ছে সংক্রমণ

কলকাতা: ডায়েরিয়ার প্রকোপ নিয়ে আতঙ্ক ছিলই। এবার ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যুর অভিযোগ উঠল দক্ষিণ কলকাতায়। মৃতের নাম বিশ্বজিৎ দাস। বয়স ৪০ বছর।
জানা গিয়েছে, বিয়ের অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে সাতদিন আগে বাঘাযতীনের জে ব্লকে আত্মীয়ের বাড়িতে আসেন তিনি। এই এলাকাটি কলকাতা পুরসভার ১০২ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যে।
আত্মীয়দের দাবি, মঙ্গবার থেকে বিশ্বজিত দাসের পেটের সমস্যা শুরু হয়। বুধবার তাঁকে বাঘাযতীন স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাঁকে ছেড়ে দেন চিকিৎসকরা।
কিন্তু, বাড়ি ফিরেই ফের অসুস্থ হয়ে পড়েন বিশ্বজিৎ দাস। আত্মীয়দের দাবি, এরপর ফের তাঁকে বাঘাযতীন স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে, একটি ইঞ্জেকশন দিয়ে এম আর বাঙুরে রেফার করা হয়। তবে পরিবারের সদস্যরা তাঁকে একটি নার্সিংহোমে নিয়ে যান। নার্সিংহোম থেকে অবস্থা আশঙ্কাজনক বলা হলে বিশ্বজিৎ দাসকে আবার নিয়ে যাওয়া হয় বাঘাযতীন স্টেট জেনারেল হাসপাতালে। কিন্তু, চিকিৎসকরা দেখে জানান, ততক্ষণে বিশ্বজিৎ দাসের মৃত্যু হয়েছে।
মৃত্যুর কারণ ডায়েরিয়া বলেই অভিযোগ মৃতের আত্মীয়দের। মৃত্যুর খবর পেয়ে সেখানে যান স্থানীয় সিপিএম কাউন্সিলর ও যাদবপুরের সিপিএম বিধায়ক সুজন চক্রবর্তী। কলকাতা পুরসভার মেয়র মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে এনিয়ে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তাঁদের কাছে এবিষয়ে কোনও খবর নেই।
এদিকে, যে ১০২ নম্বর ওয়ার্ডে এই মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে, সেখানকার জলে পুরসভার পরীক্ষাতেই দূষণের প্রমাণ মিলেছে বলে সূত্রের দাবি। সম্প্রতি, এই ওয়ার্ডের কয়েকটি জায়গা থেকে জলের নমুনা নিয়ে পরীক্ষা করে কলকাতা পুরসভা। এর মধ্যে তিনটি নমুনায় দূষণের প্রমাণ মিলেছে। একটি বাড়ির পাইপলাইনের জল। একটি বোতলবন্দি পানীয় জল। একটি নলকূপের জল।
পুরসভা সূত্রে দাবি, যে বাড়ির জলের লাইনে দূষণের প্রমাণ মিলেছে, সেই পাইপলাইন পাল্টে দেওয়া হয়েছে। তবে পুরসভা সূত্রে এই ঘটনাটিকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা হিসেবে দাবি করা হচ্ছে।
এরমধ্যেই পাটুলি সহ দক্ষিণ কলকাতার কয়েকটি নতুন এলাকায় এবার ডায়েরিয়া থাবা বসিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। বাঘাযতীন স্টেট জেনারেল হাসপাতাল সূত্রে দাবি, কলকাতা পুরসভার ১০০, ১১১ ও ১১২ নম্বর ওয়ার্ডে নতুন করে ডায়েরিয়ার প্রকোপ দেখা যাচ্ছে।
বুধবার পাটুলি থানা এলাকার কয়েকটি নতুন জায়গা থেকেও ডায়েরিয়া আক্রান্তদের বাঘাযতীন স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে বাঘাযতীন স্টেট জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়েছে পাঁচজন বাড়তি চিকিৎসক।
বাঘাযতীন স্টেট জেনারেল হাসপাতাল সূত্রে খবর, বুধবার এখানে ডায়েরিয়ার চিকিৎসা করাতে আসেন ৪২১ জন রোগী। এর মধ্যে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ২২ জনকে। এদিন পর্যন্ত ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে এই হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন মোট ৪৪ জন।

Releated Post