নিজেকে কষ্ট না দিয়েও খরচ কমানো যায়, রইল ৫টি জবরদস্ত টিপস

বাজে খরচ কমিয়ে কীভাবে সাশ্রয় করা যাবে। রইল ৫টি টিপস।

বিন্দু বিন্দু করেই সিন্ধু হয়। এ আর নতুন কী কথা! আমরা সবাই জানি। কিন্তু মনে রাখি কি? মাস পয়লায় যখন মোবাইলে স্যালারি ঢোকার মেসেজ আসে, তখন ভাবি, এ মাসে খরচ করব মেপে। কিন্তু মাসের শেষে দেখা যায়, কোথায় কী! সেভিংসের হাল দেখে যদি বা গা-ঝাড়া দিয়ে উঠি, ফোকাস করি বড় খরচের দিকে। ভেবেও দেখি না, ছোট ছোট অনেক খরচের ক্ষেত্রে সামান্য পরিকল্পনা করে চললেই কিন্তু ম্যানেজ করা যাবে খরচের চাপ। মাসের শেষে সেভিংস অ্যাকাউন্টের দিকে তাকিয়ে হাসি ফুটবেই। আসুন দেখে নেওয়া যাক, বাজে খরচ কমিয়ে কীভাবে সাশ্রয় করা যাবে। রইল ৫টি টিপস।

১. অনর্থক টক টাইম ও ডেটা প্যাকের খরচ কমান

বাড়িতে ও অফিসে ওয়াই ফাই পরিষেবা রয়েছে। অথচ মোবাইলে আলাদা করে ডেটা প্যাক ভরানো হয়। হিসেব করে দেখলে, এই খরচ কিন্তু একেবারেই অপ্রয়োজনীয়। কারণ এতটা ডেটা সত্যিই লাগে না। একই কথা টকটাইমের ক্ষেত্রেও। খামোখা নিয়ম করে প্রিপেড রিচার্জ না করে খোঁজ নিন আনলিমিটেড কলিং অফারগুলির। সাশ্রয় হবেই।

২. শেয়ার ট্যাক্সিতে যাওয়া অভ্যাস করুন

সারাদিনের ক্লান্তির শেষে একটু আরাম করে বাড়ি যেতে সকলেই চায়। অনেকেই বাস বা ট্রেনে না গিয়ে ট্যাক্সি নিয়ে নেন। এই খরচকে কিন্তু ম্যানেজ করা যায়। নিজের জন্য আলাদা ট্যাক্সি না নিয়ে, শেয়ার ট্যাক্সিতে যান। আরামেও যেতে পারবেন। খরচও অনেকটা কমবে।

৩. শপিংয়ের জন্য সেলের খোঁজ রাখুন

শপিং নিশ্চয়ই করবেন। কিন্তু একটু পরিকল্পনা করে করুন। ইচ্ছেমতো কেনাকাটা না করে লক্ষ রাখুন ইন্টারনেটের দিকে। অনেক রকম অনলাইন ডিসকাউন্ট নিয়মিত পাওয়া যায়। অফ সিজন সেলও থাকে। একটু খোঁজ রাখুন। অনায়াসে বড় ছাড় পেয়ে যাবেন।

৪. জিমে তো ভর্তি হয়েছেন, যাচ্ছেন নিয়ম করে?

ওয়ার্কিং আউট ব্যাপারটা মোটেই সস্তা নয় আজকের দিনে। যদি ভাল জিম হয়, বছরে হাজার পঁচিশেক খরচ। আর যদি ব্যক্তিগত ট্রেনার থাকে, তা হলে তো খরচের অঙ্ক আরও বাড়বে। কিন্তু এত খরচ করেও সত্যিই কি আপনি সেখানে যাচ্ছেন নিয়ম করে। ভেবে দেখুন।

৫. ডিটিএইচ কানেকশনের নিয়ন্ত্রণ

আজকাল অনেকের বাড়িতেই দু’টি টিভি। আর দুটিতেই ডিটিএইচ কানেকশন। তার সঙ্গে নেটফ্লিক্স বা অ্যামাজন প্রাইম-এর মতো অনলাইন স্ট্রিমিং সার্ভিসের খরচ তো আছেই। ভেবে দেখার দরকার আছে, সত্যিই এত খরচ করে এতটা বিনোদন কেনার দরকার আছে কি না। সারা দিনের ব্যস্ততার শেষে এতটা সময় কি আমাদের থাকে? এই খরচটাও কিন্তু চাইলেই নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

Releated Post